ভূমিকা

ভূমিহীন ক্ষেতমজুর, বস্তিবাসী নর-নারী এবং প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর আবাসন অধিকার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে আরবান ১৯৯৯ সালে নি¤œ আয়ের বস্তিবাসী দরিদ্র জনগোষ্ঠীর আবাসন সমস্যা সমাধানসহ ঢাকা মহানগরীতে তাঁদের স্থায়ীভাবে এবং সম্মানজনক অবস্থায় বসবাসের জন্য আবাসন সহায়তা প্রকল্প বাস্তবায়নের কাজ শুরু করে।

আরবান ঢাকা‘র মিরপুর থানাধীন বড়বাগ এলাকায় (প্লট-১০, রোড-৭, বসতি প্রপার্টি, বড়বাগ, মিরপুর-২, ঢাকা-১২১৬, বাংলাদেশ) নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য ১০ অক্টোবর ২০০১ সালে ২৭,৩৮,৩৬৭/-(সাতাশ লক্ষ আটত্রিশ হাজার তিনশত সাতষট্টি) টাকা মূল্যে ৬ কাঠা জমি ক্রয় করে। উক্ত জমির উপর ৬ তলা বিশিষ্ট ভবনে ৪০টি ফ্ল্যাট নির্মাণ করা হয়। উক্ত ফ্লাটে সদস্যগণ নিরাপদে বসবাস করছেন। ইতোমধ্যে আরবান ২ জন কর্মী ও ৩৪ জন সদস্যসমেত মোট ৩৬ জনকে ফ্ল্যাটের মালিকানা হস্তান্তর করেছে। অবশিষ্ট সদস্যদের ফ্ল্যাটের মালিকানা হস্তান্তর প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আবাসন সহায়তা প্রকল্প-হ্যাপ-১ এর অভিজ্ঞতার আলোকে আরবান, আবাসন সহায়তা প্রকল্প-হ্যাপ-২ (Housing Assistance Project-HAP-2) বাস্তবায়নের উদ্যোগ গ্রহণ করে। এরই আলোকে আরবান ঢাকা‘র সবুজবাগ থানাধীন মেরাদিয়া এলাকায় (হোল্ডি: ১১১/৩/ডি/১, মেরাদিয়া, খিলগাঁও, ঢাকা-১২১৯, বাংলাদেশ) ৯ অক্টোবর ২০০৩ সালে ৩০,৩৬,৬৫০/-(ত্রিশ লক্ষ ছত্রিশ হাজার ছয়শত পঁঞ্চাশ) টাকা মূল্যে ৩৩ শতাংশ (এক বিঘা) জমি ক্রয় করে। দরিদ্র ও নিম্ন আয়ের মানুষ, যাঁদের ঢাকা মহানগরীতে নিজস্ব কোন বাসস্থান নেই তাঁদের এবং আরবানের স্থায়ী কর্মীদের মধ্যে যাঁরা কমপক্ষে ১০ বছর সততা ও নিষ্ঠার সাথে আরবানের বিভিন্ন প্রকল্প ও কর্মসূচিতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন অথচ মহানগরীতে তাঁদের নিজস্ব কোন বাসস্থান নেই, এমন কর্মীদের জন্য স্থায়ী আবাসনের ব্যবস্থা করা এ প্রকল্পের মূল লক্ষ্য। আরবান-কে স্থায়ীত্বশীল করার লক্ষ্যে আরবানের নিজস্ব কেন্দ্রীয় অফিস, পাঠাগার, পোষ্টার গ্যালারী, সেমিনার হল ও সাংস্কৃতিক চর্চা কেন্দ্র ইত্যাদি স্থায়ীভাবে নির্মাণ করা এ প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য।